জামিন চান না কেন, আইনজীবীদের উদ্দেশে পরীমণি

পরীমণিকে তিন দফা রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। শনিবার ঢাকার মহানগর হাকিম আশেক ইমাম তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বারবার রিমান্ডে নেওয়া এবং জামিন আবেদন না করায় আইনজীবীদের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পরীমণি। তিনি তাঁদের উদ্দেশে বলেছেন, আপনারা জামিন চান না কেন? জামিন শুনানি করেন।

দুপুর পৌনে ১২টার দিকে পরীমণিকে আদালতে হাজির করা হয়। বিকেল ৩টার দিকে আদালতের কাঠগড়ায় তোলার আগে পর্যন্ত তাঁকে আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক গাজী গোলাম মোস্তফা এক প্রতিবেদনে পরীমণিকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন জানান। প্রতিবেদনে বলা হয়, পরীমণিকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এই মামলার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে, যা যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। পরীমণি জামিন পেলে সাক্ষীদের প্রভাবিত করার সম্ভাবনা রয়েছে। তদন্তে ব্যাঘাত সৃষ্টি হতে পারে।

পরীমণির পক্ষে জামিনের আবেদন করেননি তাঁর আইনজীবীরা। জামিনের আবেদন না করায় তদন্ত কর্মকর্তার আবেদন অনুযায়ী পরীমণিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়।

পরীমণির পক্ষে অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান ও অ্যাডভোকেট নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভী আদালতে উপস্থিত ছিলেন। কারাগারে পাঠানোর আদেশ হওয়ার পর পরীমণি তাঁর আইনজীবীদের উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনারা জামিন চান না কেন? জামিন শুনানি করেন। দেখছেন না আমি পাগল হয়ে যাচ্ছি। বারবার রিমান্ড লিখছে, টানাহেঁচড়া করছে। আমার সঙ্গে আপনারা কি কথা বলবেন?’

আদালতের আদেশের পরপরই পরীমণিকে হাজতখানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে প্রিজন ভ্যানে করে কাশিমপুর কারাগারে নেওয়া হয়।

গত বৃহস্পতিবার পরীমণিকে একদিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। এর আগে দুই দফা রিমান্ড শেষে রাজধানীর বনানী থানায় করা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় পরীমণি ও তাঁর সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দিপুকে গত ১৩ আগস্ট আদালতে হাজির করা হয়। ওই দিন রিমান্ডের আবেদন ছিল না। এই দুজনের পক্ষে জামিনের আবেদন করা হলে আদালত শুনানি শেষে তাঁদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান। ১৬ আগস্ট আবার পরীমণিকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়। ১৯ আগস্ট ওই আবেদনের ওপর শুনানি শেষে এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয়।

গত ৪ আগস্ট পরীমণিকে রাজধানীর বনানীর বাসা থেকে আটক করে র‍্যাব। সঙ্গে আশরাফুল ইসলাম দিপুকেও আটক করা হয়। এজাহার অনুযায়ী তাঁর বাসা থেকে ১৯ বোতল দামি বিদেশি মদ, ৪ গ্রাম আইস মাদক ও ১টি এলএসডি ব্লট উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া একটি বং পাইপও উদ্ধার করার কথা জানায় র‍্যাব।

এ ঘটনায় বনানী থানায় পুলিশ বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে। ৫ আগস্ট পরীমণি ও তাঁর সহযোগীকে চার দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। গত ১০ আগস্ট আবার দুজনকে চার দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Next News BD Powered By : Code Next IT