রাজপরিবার ছেড়ে স্বামীকে নিয়ে নিউইয়র্কে রাজকুমারী

সাধারণ পরিবারের স্বামী কেই কোমুরোকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমিয়েছেন জাপানের সাবেক রাজকন্যা ম্যাকো। এরআগে রাজপরিবার ছেড়ে রোববার (১৪ নভেম্বর) সকালে টোকিও বিমানবন্দর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে উড়াল দেন।-খবর বিবিসির

গত মাসে এ যুগল অনাড়ম্বর পরিবেশে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। তারা নিউইয়র্কে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া নিয়েছেন। সেখানে কেই কোমুরো একটি আইনি ফার্মে কাজ করেন।

জাপানি আইনানুসারে, কোনো সাধারণ পরিবারের সদস্যকে বিয়ে করলে রাজপরিবারের নারী সদস্যরা তাদের মর্যাদা হারাবেন। বিমানবন্দরের বহির্গমন টার্মিনাল দিয়ে যখন তারা হেঁটে সামনে যাচ্ছিলেন, তখন তাদের ব্যাপক পুলিশ প্রহরা দিতে দেখা গেছে।

প্রস্থানের সময় সেখানে শতাধিক সাংবাদিক উপস্থিত থাকলেও কোনো প্রশ্নেরই জবাব দেয়নি তারা। জাপানি টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ফুটেজ থেকে দেখা যায়, নিউইয়র্কে অবতরণ করার পর এ যুগল বিমানবন্দর দিয়ে হেঁটে অপেক্ষারত একটি গাড়িতে ওঠেছেন।

বিয়ের পর ম্যাকো তার স্বামীর পদবি গ্রহণ করেছেন। নিউইয়র্কে তিনিও কাজ করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। রাজমর্যাদা ছেড়ে ম্যাকোর স্বামীর হাত ধরে ভিনদেশে পাড়ির এ ঘটনাকে ব্রিটিশ রাজপরিবারের সদস্য প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মার্কেলের বিয়ের সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছে।

ম্যাকো ও কোমুরোর প্রথম দেখা হয় ২০১২ সালে, টোকিওর ইন্টারন্যাশনাল ক্রিশ্চিয়ান ইউনিভার্সিটিতে। সেখানেই তারা প্রেমে পড়েন, এর ৫ বছর পর হয় বাগদান।

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে এই যুগল তাদের বিয়ের কথা ঘোষণা করেন। তবে কোমুরোকে জড়িয়ে আর্থিক কেলেঙ্কারির গুজবে তাদের বিয়ে বিলম্বিত হয়।

কোমুরোর মায়ের দেনা আছে, তাই অর্থের জন্য কোমুরো রাজকুমারীকে বিয়ে করছেন বলে চাউর হয়। অভিযোগ উঠেছিল, কোমুরোর মা তার একসময়ের বাগদত্তার কাছ থেকে অর্থ নিয়ে ফেরত দেননি। ওই অর্থ ঋণ ছিল নাকি উপহার তা নিয়ে ছিল বিতর্ক।

তবে কোমুরো বলেছিলেন, ওই টাকা ঋণ নয়, উপহার ছিল। এ বিতর্কর পর আইন নিয়ে পড়াশোনার জন্য কোমুরো যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। সেখান থেকে স্নাতক করেই এখন তিনি নিউ ইয়র্কে কাজ করছেন। গত মাসে টোকিওয় ফেরেন তিনি।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Next News BD Powered By : Code Next IT